Breaking News
Home / খবর সারাদিন / ট্যাটুওয়ালি ম্যাডাম-এর টানে স্কুলে ছুটছে পড়ুয়ারা, ক্লাসে রোজ উপস্থিত পড়ুয়ারা

ট্যাটুওয়ালি ম্যাডাম-এর টানে স্কুলে ছুটছে পড়ুয়ারা, ক্লাসে রোজ উপস্থিত পড়ুয়ারা

ঘড়ির কাঁটা আটটা ছুঁইছুঁই। এই সময় স্কুল থাকলে অনেক বাচ্চাই আসতে ধানাইপানাই করে। কারণ এত সকালে কারই বা উঠে স্কুলে গিয়ে অ-আ-ক-খ বা A-B-C-D কপচাতে ইচ্ছা করে? কিন্তু উত্তরপ্রদেশের একটি স্কুলের ছবি একেবারে আলাদা। আটটাতেই ক্লাস ভরতি খুদে পড়ুয়া। কারণ তাদের ‘ট্যাটু দিদিমণি’র ক্লাস বলে কথা।

এই ‘ট্যাটু দিদিমণি’র নাম হল শিপ্রা তিওয়ারি। তাঁর গায়ে ট্যাটু আঁকা রয়েছে। তাই ছাত্রছাত্রীরা তাঁর এমন নাম দিয়েছে। স্কুলের খুদে পড়ুয়াদের কাছে তিনি ‘ট্যাটুওয়ালি ম্যাডামজি’। তাঁর পড়ানোর স্টাইলেই মোহিত খুদেরা।

তাই একটা ক্লাসও কামাই করতে চায় না। সকাল হলেই তাই অন্য বাড়িতে যখন বাচ্চাকে স্কুলে পাঠানোর জন্য রীতিমতো যুদ্ধ চলে, তখন উত্তরপ্রদেশের সোনওয়ারের বকসি কা তালাবের এই সরকারি প্রাথমিক স্কুলের পড়ুয়ারা পোশাক পরে একেবারে তৈরি। কারণ, ‘ট্যাটুওয়ালি ম্যাডামজি’র ক্লাস। কিন্তু এমন কী করেন এই শিক্ষিকা?

জানা গিয়েছে, একসময় এই স্কুলে খুব কম ছাত্রছাত্রী ছিল। মাত্র হাতে গোনা কয়েকজন স্কুলে আসত। টিফিনের ঘণ্টা পড়ার অপেক্ষা করত তারা। কারোরই পড়াশোনায় মন ছিল না। কিন্তু এখন স্কুলের ছবিটাই বদলে গিয়েছে। শিপ্রা জানিয়েছেন, তিনি পুঁথিগত বিদ্যা পড়ুয়াদের দিতে চান না।

ছাত্রছাত্রীরা কোনও ইচ্ছা ছাড়া বাধ্য হয়ে পড়াশোনা করুক, পছন্দ ছিল না তাঁর। তাই নতুন পন্থা অবলম্বন করেন তিনি। কখনও পুতুলের সাহায্যে, কখনও চার্ট দিয়ে, কখনও আবার হাত-পা নেড়ে পড়ান তিনি। খুদেদের কাছেও তা জলবৎ তরলং হয়ে যায়।

সুহানি শর্মা নামে এক পড়ুয়া জানিয়েছেন, ও একদিনের জন্য ‘ট্যাটুওয়ালি ম্যাডামজি’র ক্লাস বাদ দেয় না। রোজ তার স্কুলে যাওয়া চাই। সুহানির সুরে সুর মিলিয়েছে ক্লাসের বাকি পড়ুয়ারাও। ‘ট্যাটুওয়ালি ম্যাডামজি’ তাদের খুব প্রিয়। আর শিপ্রা কী বলছেন? পড়ুয়াদের কাছ থেকে শ্রদ্ধা আর ভালবাসা পাওয়া তো কম কথা নয়। শিক্ষক দিবসে এর থেকে বড় আর কী হতে পারে?

About bongfact

Check Also

মাঝরাতে অশালীন মেসেজ, ভিডিও কল, রায়গঞ্জের ভূগোল স্যরই ছাত্রীদের আতঙ্ক

ছাত্রীদের সঙ্গে এমনই অশালীন আচরণের অভিযোগ উঠল এক স্কুল শিক্ষকের বিরুদ্ধে। শুধু অশালীন মেসেজই নয়, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *