যে ৫টি বলিউড ছবি কোনভাবেই বাবা-মা’র সঙ্গে দেখা যাবে না

0
2378

সিনেমা দেখতে কে না ভালোবাসে। ছুটির দিনে বা অন্যান্য দিনে দল বেঁধে একসঙ্গে সিনেমা দেখার মজাই যেন আলাদা। এছাড়া অনেকেই পরিবারের সবাইকে নিয়ে সিনেমা দেখতে পছন্দ করেন।

তবে সিনেমার মধ্যেও রয়েছে নানা ভাগ। যেমন, ছোটদের চলচ্চিত্র, অ্যাকশন ফিল্ম, ট্র্যাজিক মুভিসহ, নানা ধাঁচের চলচ্চিত্র তো আছেই। কিন্তু কিছু এমন সিনেমাও আছে যেগুলো বাবা মায়ের সঙ্গে বসে দেখা যায় না। সিনেমা চলাকালীন ধরুন কোনও আপত্তিকর সিন স্ক্রিনে চলে এল।

সেইসময় যারা বয়স্ক মানুষরা সঙ্গে থাকেন তাঁরাও যেমন বিব্রত হয় ঠিক তেমনই আমরাও বিব্রত বোধ করি। তাই সিনেমা দেখার আগে ঐ সিনেমা সম্পর্কে খানিকটা জেনে নেওয়া উচিৎ। যাতে করে ভুলেও ঐ সিনেমা বড়দের সামনে দেখতে বসে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে না হয়। তেমনই ৫টি সিনেমার নাম রইল এখানে-

ইনসাফ কা তরাজু— ১৯৮০ সালের এই ছবি আজও টিভি-র বিভিন্ন চ্যানেলে দেখানো হয়। কিন্তু এই সিনেমার মধ্যে দুটি এমন দৃশ্য আছে যা সকলের সঙ্গে বসে দেখা যায় না।’ দুটি ভয়ঙ্কর ধর্ষণের দৃশ্য ভোলা যায় না। সামনে পড়ে ধরণী দ্বিধা হও-পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়ই। বিশেষ করে পদ্মিনী কোলাহ্‌পুরীর যৌননিগ্রহের দৃশ্যটি আজও গুরুজনের সামনে অস্বস্তি তৈরি করে।

গ্যাংগস অফ ওয়াসিপুর— না এই সিনেমার মধ্যে কোনও উত্তেজক মূলক দৃশ্য নেই। কিন্তু সিনেমার পরিচালক ধানবাদ খনি অঞ্চলের রূঢ়তম বাস্তবকে ক্যামেরায় তুলে ধরতে গিয়ে বেশ কিছু স্ল্যাং ব্যবহার করেছেন। বলতে গেলে প্রায় প্রতিটি সংলাপেই ঝরে পড়েছে স্ল্যাং। এই সিনেমাও সকলের সঙ্গে বসে দেখা যায় না।

দিল্লি বেলি— ২০১১-এর এই ডার্ক কমেডির নিয়ে বলার নেই। কিন্তু পরিচালক অভিনয় দেও আর চিত্রনাট্যকার অক্ষত শর্মা রাজধানীর আরবান স্ল্যাংকে তুমুলভাবে ব্যবহার করেছিলেন এই ছবিতে। তার উপরে ছিল বদলাতে থাকা সামাজিক সম্পর্কের খতিয়ান। এটাও সকলের সঙ্গে বসে দেখার মতো নয়।

পার্চড— লীনা যাদব পরিচালিত ২০১৫-এর এই ছবির কেন্দ্রীয় বিষয় রাজস্থানের মরু অঞ্চলের সমাজ ও নারী। নারী অবদমনের বাস্তবকে তুলে ধরতে একদিকে যেমন উঠে এসেছে স্পষ্ট নগ্নতা, তেমনই এর সংলাপে কোনও আগল রাখেননি পরিচালক। যৌনতা এই সিনেমায় এত দেখানো হয়েছে যে পরিবারের সঙ্গে বসে দেখা দুরহ ব্যাপার।

পিঙ্ক— অনিরুদ্ধ রায়চৌধুরীর ২০১৬-এর হিন্দি ছবিরও বিষয় নারী-নিগ্রহ। চিত্রনাট্যের প্রয়োজনেই উঠে এসেছে এমন সব সওয়াল-জবাব, যা বয়ঃসন্ধি পর্বের সন্তান-সহযোগে উপভোগ করা কঠিন। এখানেও কয়েকজন নারীর জীবন দেখানো হয়েছে। কোর্ট রুমের মধ্যে যে সওয়াল জবাব হয়েছিল তা দেখা সকলের সঙ্গে মোটেই যাবে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here