নিজের জন্মমাস নিশ্চই জানেন, কিন্তু জন্মমাস অনুযায়ী আপনার ইষ্টদেবতা কে জানেন.?

0
100

হিন্দু শাস্ত্র অনুযায়ী, মানুষেরা বিশ্বাস করে, তেত্রিশ কোটি ভারতীয় দেব-দেবী রয়েছেন। এই দেব-দেবীরা বিষ্ণু, শিব ও শক্তির অবতার। তাছাড়া, আমরা সেই দেবতার পূজা করে থাকি যার সঙ্গে আমরা মনের সংযোগ অনুভব করে থাকি।

কখনো কখনো আপনি হয়তো খুব অবাক হয়ে যান, যে কেন আপনি সেই নির্দিষ্ট দেবতার প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়েন এবং আপনি তাদের প্রতি এক অলীক আকর্ষণ অনুভব করেন। এখন আপনি যদি না জেনে থাকেন, রাশি অনুযায়ী আপনার কোন দেবতাকে পূজা করা উচিৎ, আসুন দেখে নিন-
১ মার্চ ও ফেব্রুয়ারি- এই দুমাসের মধ্যে যাদের জন্ম তাদের ভগবান বিষ্ণুর পুজো করা উচিৎ। শাস্ত্র অনুযায়ী, আপনি যদি ভগবান বিষ্ণুর পুজো করেন তাহলে কোনোদিন দুঃখ পাবেন না। আপনি যদি অফুরন্ত খুশি পেতে চান তাহলে ভগবান বিষ্ণুর নাম জপ করুন প্রতিদিন।

২ ফেব্রুয়ারি- এই মাসে যারা জন্মেছেন তাঁদের ভগবান শিবের আরাধনা করা উচিৎ। নিয়ম অনুযায়ী, এ মাসে যাদের জন্ম তাদের সকাল বেলায় স্নান সেরে ওম নমঃ শিবায় মন্ত্রটি পাঠ করতে হবে। যদি এরকম করে থাকেন তাহলে আপনার জীবনে সুখ সমৃদ্ধি আসতে সময় লাগবে না। এছাড়া আপনার ওপর দেবাদীদেব মহাদেবের আশীর্বাদ থাকার ফলে কর্মক্ষেত্রে সাফল্য পাওয়ার পাশাপাশি অনেক টাকার মালিক হতে পারবেন।৩ জানুয়ারি ও নভেম্বর মাসে যাদের জন্ম- শাস্ত্র অনুযায়ী, যারা এই দুমাসের মধ্যে জন্মেছেন তাদের ভগবান শিব অথবা গণেশের পুজো করা উচিৎ। বলা হয় যে, এই নিয়মটা যদি মেনে চলা যায় তাহলে অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ হওয়া যায়। পাশাপাশি জীবনে চলার ক্ষেত্রে কোনো বাধা আসে না। এমনকি ব্ল্যাক ম্যাজিকের হাত থেকেও রেহাই পাওয়া যায়।

৪ এপ্রিল, সেপ্টেম্বর ও অক্টোবর- এই তিন মাসের মধ্যে যাদের জন্ম তাদের ভগবান গণেশের পুজো করা উচিৎ। ভগবান বিষ্ণু হলেন সমৃদ্ধির দেবতা। অপনি যদি গণপতির পুজো করেন তাহলে আপনার অর্থনৈতিক উন্নতি চোখে পড়বে।
৫ জুলাই এবং অগাস্ট- এই দুই মাসে যাদের জন্ম তাদের ভগবান বিষ্ণু এবং গণেশের পুজো করা উচিৎ।

৬ মে ও জুন- এই দু মাসের মধ্যে যাদের জন্ম তাদের মা দুর্গার আরাধনা করা উচিৎ। মা দুর্গার পাশাপাশি আপনি মা কালিরও আরাধনা করতে পারেন। এই দুই ভগবানের নাম নিলে আপনার ভেতরে থাকা খারাপ শক্তি পালিয়ে যাবে। যার জেরে জীবনে আনন্দের অভাব হবে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here